ঢাকা ০২:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

অবশেষে বন্ধ হলো গোসাঁইরহাটে সেই একটি গাছের বৃক্ষমেলা 

শরীয়তপুরের গোসাইরহাটে বন বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসনের ব্যানারে আয়োজন করা সেই বৃক্ষমেলাটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
সোমবার (৮ জুলাই) বেলা ১২ টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহমেদ সাব্বির সাজ্জাদ।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শরীয়তপুরের গোসাইরহাটে
বন বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসনের ব্যানারে উপজেলা পরিষদের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার মাঠ প্রাঙ্গণে ১ জুলাই থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত ১৫ দিনের মেলার আয়োজন করা হয়। সেই মেলায় বসা ৩৯ টি স্টলের মধ্যে ছিলো মাত্র একটি গাছের চারা বিক্রির স্টল। এদিকে ব্যানারে আয়োজনে বনবিভাগের নাম উল্লেখ থাকলেও তারা বিষয়টি অস্বীকার করেন। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হলে মেলাটি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় উপজেলা প্রশাসন।
এ ব্যাপারে জেলা বন কর্মকর্তা মো. সালাহ উদ্দিন বলেন, উপজেলা প্রশাসন ভুল করে ব্যানারে আমাদের নাম দিয়েছিলো। পরে এই নিয়ে লেখালেখি হলে পুনরায় ব্যানার সংশোধন করা হয়। ওই মেলাটি আমাদের ছিলো না।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহমেদ সাব্বির সাজ্জাদ বলেন, আমাদের জায়গা ব্যবহারের ক্ষেত্রে পরিষদে বসে সিদ্ধান্ত নিয়ে মেলাটির জন্য অনুমতি দিয়েছিলাম। পরে কিছু অনিয়ম পরিলক্ষিত হওয়ায় আমরা মেলাটি বন্ধ করে দিয়েছি। এই ব্যাপারে আর কিছু বলতে চাচ্ছি না।
ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শেরপুরে কোটাবিরোধী আন্দোলনকারী-পুলিশ সংঘর্ষ : পুলিশের গুলি, পুলিশ ও সাংবাদিকসহ আহত ২০

অবশেষে বন্ধ হলো গোসাঁইরহাটে সেই একটি গাছের বৃক্ষমেলা 

আপডেট সময় ০৫:১৯:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ৮ জুলাই ২০২৪
শরীয়তপুরের গোসাইরহাটে বন বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসনের ব্যানারে আয়োজন করা সেই বৃক্ষমেলাটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।
সোমবার (৮ জুলাই) বেলা ১২ টার দিকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহমেদ সাব্বির সাজ্জাদ।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শরীয়তপুরের গোসাইরহাটে
বন বিভাগ ও উপজেলা প্রশাসনের ব্যানারে উপজেলা পরিষদের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার মাঠ প্রাঙ্গণে ১ জুলাই থেকে ১৫ জুলাই পর্যন্ত ১৫ দিনের মেলার আয়োজন করা হয়। সেই মেলায় বসা ৩৯ টি স্টলের মধ্যে ছিলো মাত্র একটি গাছের চারা বিক্রির স্টল। এদিকে ব্যানারে আয়োজনে বনবিভাগের নাম উল্লেখ থাকলেও তারা বিষয়টি অস্বীকার করেন। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা সমালোচনার সৃষ্টি হলে মেলাটি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় উপজেলা প্রশাসন।
এ ব্যাপারে জেলা বন কর্মকর্তা মো. সালাহ উদ্দিন বলেন, উপজেলা প্রশাসন ভুল করে ব্যানারে আমাদের নাম দিয়েছিলো। পরে এই নিয়ে লেখালেখি হলে পুনরায় ব্যানার সংশোধন করা হয়। ওই মেলাটি আমাদের ছিলো না।
এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহমেদ সাব্বির সাজ্জাদ বলেন, আমাদের জায়গা ব্যবহারের ক্ষেত্রে পরিষদে বসে সিদ্ধান্ত নিয়ে মেলাটির জন্য অনুমতি দিয়েছিলাম। পরে কিছু অনিয়ম পরিলক্ষিত হওয়ায় আমরা মেলাটি বন্ধ করে দিয়েছি। এই ব্যাপারে আর কিছু বলতে চাচ্ছি না।