ঢাকা ০৪:৪৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শ্রীনগরে সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা জনদুর্ভোগ চরমে

সামান্য একটু বৃষ্টি হলেই উপজেলা কার্য্যালয় ও থানার মুল ফটকসহ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স যাতায়াতের সড়কটি পানিতে তলিয়ে যায়। মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলা শহর থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গামী সড়কটি সংস্কার কাজের পরে সড়কে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় এবং সড়কের মাঝখান উঁচু ও দু-পাশ ঢালু হওয়ার কারনে এমন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন সড়কে যাতায়াতকারীরা।

গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে শ্রীনগর চকবাজার হতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গামী সড়কটি বৃষ্টির পানিতে  তলিয়ে যায়। সড়ক ও জনপথের এই আঞ্চলিক সড়কটির শ্রীনগর উপজেলা কার্য্যালয়ের মুল ফটক ও শ্রীনগর থানার মুল ফটকসহ কোথাও কোথাও জমে ছিল ১ থেকে দেড় ফুট পানি। ফলে এলাকাবাসী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  ও উপজেলার মুল শহরে যাতায়াতে চরম  দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সড়কের শ্রীনগর থানা ও উপজেলার মুল ফটক,গোল্ডেন সিটি রিক অফিস ও দিলরুবা ক্লিনিকের সামনে সড়কের মাঝে ও দু-পাশে জমে থাকা কাদা পানিতে মিলেমিশে একাকার। স্থানীয় মানুষদের এই নোংরা পানির মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে।

উপজেলা কার্যালয়,থানা ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এই তিনটি মানুষের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থান। থানা ও উপজেলা এ দুটি কার্য্যালয়ের প্রবেশদ্বারে হাঁটু পর্যন্ত পানি এবং সড়কে খানাখান্দে ভরে গেছে। সড়কটির দুই পাশে কাদা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় এবং বিকল্প কোন সড়ক না থাকায় পথচারীরা বাধ্য হয়ে এই সড়কটিতে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

শ্রীনগর থানায় অভিযোগ করতে আসা শুভ বলেন, থানার সামনে রাস্তায় এত পরিমান পানি যে,ভিতরে হেটে যাওয়ার উপায় নেই। হেটে গেলে পরণের প্যান্ট হাঁটুর উপরে তুলে তার পর যেতে হয়। এটা আমাদের জন্য একটা ভোগান্তি, সড়কটি সংস্কারের সময় একটি ড্রেনের ব্যবস্থা করা উচিত ছিল।

প্রতিবেদনের জন্য ছবি তোলার সময় অটো চালক ইয়াছিন বলেন, আমরা অটোতে যাত্রী নিয়ে যাতায়াত কালে সড়কে হাটু পর্যন্ত পানির কারণে আমাদের অটোগাড়ির ক্ষতি হয় এবং রাস্তার পানিতে যাত্রীদের পড়নের কাপড়চোপড় ভিজে যায়। আমরা খুব কষ্ট করে এই রাস্তা দিয়ে অটো চালাই। আমরা চাই জলাবদ্ধতা নিরসনে দ্রুত ড্রেনের ব্যবস্থা করা হোক।

মুন্সীগঞ্জ সড়ক ও জনপথের  উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ নাজমুস সাকিব বলেন, এব্যাপারে খোঁজ নিয়ে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

শেরপুরে কোটাবিরোধী আন্দোলনকারী-পুলিশ সংঘর্ষ : পুলিশের গুলি, পুলিশ ও সাংবাদিকসহ আহত ২০

শ্রীনগরে সামান্য বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা জনদুর্ভোগ চরমে

আপডেট সময় ১২:১৬:৪১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই ২০২৪

সামান্য একটু বৃষ্টি হলেই উপজেলা কার্য্যালয় ও থানার মুল ফটকসহ উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স যাতায়াতের সড়কটি পানিতে তলিয়ে যায়। মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলা শহর থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গামী সড়কটি সংস্কার কাজের পরে সড়কে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা না থাকায় এবং সড়কের মাঝখান উঁচু ও দু-পাশ ঢালু হওয়ার কারনে এমন জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন সড়কে যাতায়াতকারীরা।

গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টিতে শ্রীনগর চকবাজার হতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স গামী সড়কটি বৃষ্টির পানিতে  তলিয়ে যায়। সড়ক ও জনপথের এই আঞ্চলিক সড়কটির শ্রীনগর উপজেলা কার্য্যালয়ের মুল ফটক ও শ্রীনগর থানার মুল ফটকসহ কোথাও কোথাও জমে ছিল ১ থেকে দেড় ফুট পানি। ফলে এলাকাবাসী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে  ও উপজেলার মুল শহরে যাতায়াতে চরম  দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সড়কের শ্রীনগর থানা ও উপজেলার মুল ফটক,গোল্ডেন সিটি রিক অফিস ও দিলরুবা ক্লিনিকের সামনে সড়কের মাঝে ও দু-পাশে জমে থাকা কাদা পানিতে মিলেমিশে একাকার। স্থানীয় মানুষদের এই নোংরা পানির মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে।

উপজেলা কার্যালয়,থানা ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এই তিনটি মানুষের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ স্থান। থানা ও উপজেলা এ দুটি কার্য্যালয়ের প্রবেশদ্বারে হাঁটু পর্যন্ত পানি এবং সড়কে খানাখান্দে ভরে গেছে। সড়কটির দুই পাশে কাদা পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় এবং বিকল্প কোন সড়ক না থাকায় পথচারীরা বাধ্য হয়ে এই সড়কটিতে যাতায়াত করতে হচ্ছে।

শ্রীনগর থানায় অভিযোগ করতে আসা শুভ বলেন, থানার সামনে রাস্তায় এত পরিমান পানি যে,ভিতরে হেটে যাওয়ার উপায় নেই। হেটে গেলে পরণের প্যান্ট হাঁটুর উপরে তুলে তার পর যেতে হয়। এটা আমাদের জন্য একটা ভোগান্তি, সড়কটি সংস্কারের সময় একটি ড্রেনের ব্যবস্থা করা উচিত ছিল।

প্রতিবেদনের জন্য ছবি তোলার সময় অটো চালক ইয়াছিন বলেন, আমরা অটোতে যাত্রী নিয়ে যাতায়াত কালে সড়কে হাটু পর্যন্ত পানির কারণে আমাদের অটোগাড়ির ক্ষতি হয় এবং রাস্তার পানিতে যাত্রীদের পড়নের কাপড়চোপড় ভিজে যায়। আমরা খুব কষ্ট করে এই রাস্তা দিয়ে অটো চালাই। আমরা চাই জলাবদ্ধতা নিরসনে দ্রুত ড্রেনের ব্যবস্থা করা হোক।

মুন্সীগঞ্জ সড়ক ও জনপথের  উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মোঃ নাজমুস সাকিব বলেন, এব্যাপারে খোঁজ নিয়ে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।