ঢাকা ১২:৫০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শরীয়তপুরে ২৫ হাজার জাল টাকার নোটসহ প্রতারক আটক

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে ২৫ হাজার টাকার জাল নোটসহ নুরুল ইসলাম (৬০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।
বুধবার (৫জুন) দুপুরে উপজেলার সখিপুর বাজার থেকে তাকে আটকের পর পুলিশে দেয় স্থানীয় লোকজন।
আটক হওয়া নুরুল ইসলাম গোসাইরহাট উপজেলার গোসাইরহাট ইউনিয়নের ধীপুর এলাকার সোবহান হাওলাদারের ছেলে।
স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, বুধবার দুপুরে সখিপুর বাজারে কেনাকাটা করছিলেন নুরুল ইসলাম নামের ওই ব্যক্তি। এসময় সে এক মুরগী বিক্রেতাকে এক হাজার টাকার একটি জাল নোট দেয়। মুরগী বিক্রেতা বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে আটক করে। পরে আশেপাশে থাকা অন্যান্য দোকানীরা এসে তাকে জিজ্ঞেস করার একপর্যায়ে তার কাছে মোট ২৫ হাজার জাল টাকা থাকার কথা স্বীকার করে। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
অভিযুক্ত নুরুল ইসলাম বলেন, হারুন আমাকে এখানে নিয়ে আসছে। ও আমাকে এখানে রেখে, মোবাইল বন্ধ করে কোথায় যেন চলে গেছে। হারুন এই জাল টাকার ব্যবসা করে। এই জাল টাকা চালাতে প্রতিদিন ৭০০ টাকা পারিশ্রমিক দেয়।
জাহিদ মুন্সী  নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, সামনে ঈদ, আর এই ঈদকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জায়গায় এই চক্রটি জাল টাকা সরবরাহ করে। যারা বুঝতে না পারে, তাদের এই জাল টাকা ধরিয়ে দিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়।
এ বিষয়ে সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বলেন, জাল টাকাসহ এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।
ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুরে রাজস্ব সম্মেলন অনুষ্ঠিত

শরীয়তপুরে ২৫ হাজার জাল টাকার নোটসহ প্রতারক আটক

আপডেট সময় ০৪:১০:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪
শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে ২৫ হাজার টাকার জাল নোটসহ নুরুল ইসলাম (৬০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।
বুধবার (৫জুন) দুপুরে উপজেলার সখিপুর বাজার থেকে তাকে আটকের পর পুলিশে দেয় স্থানীয় লোকজন।
আটক হওয়া নুরুল ইসলাম গোসাইরহাট উপজেলার গোসাইরহাট ইউনিয়নের ধীপুর এলাকার সোবহান হাওলাদারের ছেলে।
স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা যায়, বুধবার দুপুরে সখিপুর বাজারে কেনাকাটা করছিলেন নুরুল ইসলাম নামের ওই ব্যক্তি। এসময় সে এক মুরগী বিক্রেতাকে এক হাজার টাকার একটি জাল নোট দেয়। মুরগী বিক্রেতা বিষয়টি বুঝতে পেরে তাকে আটক করে। পরে আশেপাশে থাকা অন্যান্য দোকানীরা এসে তাকে জিজ্ঞেস করার একপর্যায়ে তার কাছে মোট ২৫ হাজার জাল টাকা থাকার কথা স্বীকার করে। পরে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
অভিযুক্ত নুরুল ইসলাম বলেন, হারুন আমাকে এখানে নিয়ে আসছে। ও আমাকে এখানে রেখে, মোবাইল বন্ধ করে কোথায় যেন চলে গেছে। হারুন এই জাল টাকার ব্যবসা করে। এই জাল টাকা চালাতে প্রতিদিন ৭০০ টাকা পারিশ্রমিক দেয়।
জাহিদ মুন্সী  নামের এক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, সামনে ঈদ, আর এই ঈদকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন জায়গায় এই চক্রটি জাল টাকা সরবরাহ করে। যারা বুঝতে না পারে, তাদের এই জাল টাকা ধরিয়ে দিয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়।
এ বিষয়ে সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান বলেন, জাল টাকাসহ এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনি পদক্ষেপ নেয়া হবে।