ঢাকা ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

না ফেরার দেশে নেত্রকোণা-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মানু মজুমদার 

নেত্রকোণা-১ (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মানু মজুমদার মারা গেছেন।
মঙ্গলবার (২১ মে) দিবাগত রাত ২টার দিকে ভারতের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৭২ বছর বয়সে তিনি মারা যান।
কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য ও নেত্রকোনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অসিত সরকার সজল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জানান, মঙ্গলবার ঢাকার বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হলে বেলা সাড়ে ৩টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে চিকিৎসার জন্যে ভারতে পাঠানো হয় মানু মজুমদারকে। পরে ভারতের বেঙ্গালোরের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।
১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদ করে গ্রেফতার হওয়ার পর তৎকালীন সময়ে সামরিক আদালতের বিচারে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয় মানু মজুমদারের। পরে ১০ বছর জেল খেটে ১৯৮৫ সালে কারামুক্ত হন এই প্রতিরোধযোদ্ধা। ২০১৮ সালে একাদশ  জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নেত্রকোনার দুর্গাপুর-কলমাকান্দা আসন থেকে আইনপ্রণেতা নির্বাচিত হন।
মানু মজুমদারের সঙ্গে এক সাথে ১০ বছর জেল খাটা বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিরোধ যোদ্ধা অসিত সরকার সজল জানান, আজ বুধবার ভারত থেকে মরদেহ আনা ও পরবর্তী অন্তোষ্টক্রিয়া সম্পন্নের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী ও মানু মজুমদারের পরিবারের সদস্যরা সিদ্ধান্ত নেবেন ও এই লক্ষ্যে কাজ চলছে।
ট্যাগস :
আপলোডকারীর তথ্য

জনপ্রিয় সংবাদ

ফরিদপুরে রাজস্ব সম্মেলন অনুষ্ঠিত

না ফেরার দেশে নেত্রকোণা-১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মানু মজুমদার 

আপডেট সময় ০২:৫৩:২৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ২২ মে ২০২৪
নেত্রকোণা-১ (দুর্গাপুর-কলমাকান্দা) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মানু মজুমদার মারা গেছেন।
মঙ্গলবার (২১ মে) দিবাগত রাত ২টার দিকে ভারতের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৭২ বছর বয়সে তিনি মারা যান।
কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদ সদস্য ও নেত্রকোনা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা অসিত সরকার সজল এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জানান, মঙ্গলবার ঢাকার বাসায় হৃদরোগে আক্রান্ত হলে বেলা সাড়ে ৩টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে চিকিৎসার জন্যে ভারতে পাঠানো হয় মানু মজুমদারকে। পরে ভারতের বেঙ্গালোরের একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।
১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদ করে গ্রেফতার হওয়ার পর তৎকালীন সময়ে সামরিক আদালতের বিচারে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হয় মানু মজুমদারের। পরে ১০ বছর জেল খেটে ১৯৮৫ সালে কারামুক্ত হন এই প্রতিরোধযোদ্ধা। ২০১৮ সালে একাদশ  জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নেত্রকোনার দুর্গাপুর-কলমাকান্দা আসন থেকে আইনপ্রণেতা নির্বাচিত হন।
মানু মজুমদারের সঙ্গে এক সাথে ১০ বছর জেল খাটা বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিরোধ যোদ্ধা অসিত সরকার সজল জানান, আজ বুধবার ভারত থেকে মরদেহ আনা ও পরবর্তী অন্তোষ্টক্রিয়া সম্পন্নের বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী ও মানু মজুমদারের পরিবারের সদস্যরা সিদ্ধান্ত নেবেন ও এই লক্ষ্যে কাজ চলছে।