মসজিদ উন্নয়নে বাধা দিয়ে সভাপতির বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের অভিযোগ 

এমএ কাইয়ুম মাইজভান্ডারি,
শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতি‌নি‌ধিঃ
মুন্সীগঞ্জ‌ের শ্রীনগরে একটি জামে মসজিদের উন্নয়নে বাধা দিয়ে উল্টো মসজিদ কমিটির সভাপতির আক্তার হোসেন মিন্টু’র বিরুদ্ধে সাধারণ সম্পাদকের মিথ্যাচার করার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার কুকু‌টিয়া ইউ‌নিয়‌নের ৭নং ওয়ার্ডের ভাটপাড়া বাইতুল নূর জা‌মে মসজিদ  কমিটির সাধারণ সম্পাদক জসিম শেখের বিরুদ্ধে এই মিথ্যাচার করার অভিযোগ উঠে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।
স্থানীয় ভাবে জানা যায়, মৃত জিয়ার উদ্দিন ও হাজী আঃ বারেক ২শতাংশ করে মোট ৪শতাংশ দান করা জমির উপর নির্মিত হয় ভাটপাড়া বাইতুল নূর জা‌মে মসজিদ। বিগত ২৫ বছর পূর্বে কমিটির সভাপতি’র বড় ভাই সহ-সভাপতি জাপান ফেরত বাদল শেখ, তার ভাইসহ  নাসির উদ্দিন মসজিদ উন্নয়নের জন্য তিনজনে দেড় লক্ষ টাকা ব্যায়ে অর্ধেক পাকা করেন। এর কয়েক বছর পর পূনরায় উন্নয়নের জন্য পূর্বের কমিটি বিলুপ্তি করে ইউনিয়ন আঃলীগের সাধারন সম্পাদক আক্তার হোসেন মিন্টুকে সভাপতি ও জসিম শেখকে সাঃ সম্পাদক  করে নতুন কমিটি গঠিত হয়। কমিটির সভাপতি নিজ প্রচেষ্টায় ক্যাশে থাকা ৭লক্ষ টাকা, এলাকারবাসীর অনুদানের ১৭ লক্ষ টাকা এবং আশপাশের এলাকার আরো অনুদানে মোট ৩৭ লক্ষ ৩ হাজার দুই’শ দশ টাকা অনুদান নিয়ে সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল শেখের মাধ্যমে ৩৬ লক্ষ ৬৫ হাজার ৬শত চৌত্রিশ টাকা ব্যায়ে কাজ হয়। অবশিষ্ট ৫৯ হাজার টাকা সহ-সভাপতির কাছে রয়ে যায়। গত ১৪ জুলাই শুক্রবার আয় ব্যায়ে হিসাব বুঝে পেয়ে কমিটির সাধারন সম্পাদকের ভাই সোহেল শেখসহ সকলেই স্বাক্ষর করেন। সাঃ সম্পাদক মসজিদ উন্নয়নে বাধা দিয়ে একই এলাকার মৃত নুর মোহাম্মদের ছেলে নিজাম, আবুল কাশেমের ছেলে উজ্জল, রুহুল আমিনের ছেলে আউয়াল,আঃ রবের ছেলে কামাল, ছবদরের ছেলে সেন্টু, মুনসুর মীরের ছেলে সেকান্দার মীর ও মান্নান মীরের রিপনগংদের নিয়ে গ্রুপ করে উন্নয়ন কাজ বাধাগ্রস্থ করে এবং সভাপতি’র বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করে আসছিল। এই জের ধরে  গত ১৬ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বাদ জুম্মা মসজিদের ভিতরে সাধারন সম্পাদক জসিম শেখ, আউয়ালগং কমিটির সভাপতিসহ অন্যান্যদের সাথে অশালীন মন্তব্য করে এতে উভয় পক্ষ তর্কবিতর্কের জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে সভাপতিকে উদ্দেশ্য করে আঃলীগ দল ধরে গালিগালাজ করে।
মসজিদ কমিটির সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোজাম্মেল শেখ, বাদল শেখ, বিল্লাল শেখ, আবুল কালাম, আঃ কাদির, দেলোয়ার হোসেন সহ একাধিক মুসল্লি বলেন, সভাপতি আক্তার হোসেন মিন্টু কারনেই মসজিদের এত উন্নয়ন হয়েছে। সে এই এলাকায় নিজের টাকা খরচ করে ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ এনে দিয়েছে। সে রাস্তা ঘাটের উন্নয়ন করেছে। জসিম গ্রুপিং করে উন্নয়নের বাধা দিয়ে নানা মিথ্যাচার করে আসছে।
মসজিদ কমিটির ক্যাশিয়ার ছেলে মাহবুব আলম এর কাছ জানতে চাইলে তিনি বলেন, মসজিদের উন্নয়নের জন্য ৩৭ লক্ষ টাকা উঠছে এবং ৩৬ লক্ষ টাকার বেশী খরচ হয়েছে এতে আমি স্বাক্ষর করেছি। সভাপতি নিজেই বলছে তিনি নাকি মসজিদ উন্নয়নের জন্য ৮০ লক্ষ টাকা খরচ করছে। তাহলে বাকী টাকার হিসাব সভাপতি দেন নাই। তার কাছে এই টাকার হিসাব চাইতে গেলে তিনি হিসাব দিচ্ছেন না।
সভাপতি’র বিরুদ্ধে সাধারণ সম্পাদক জসিম শেখের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি সভাপতির বিরুদ্ধে আমি মিথ্যাচার করছি এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমি শুধু তার কাছে হিসাব চেয়েছি। সে হিসাব না দেয়ায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ আঃলীগ নেতাদের জানিয়েছি।