বরগুনায় ছুরির আঘাতে মৃত্যুর মুখে যুবক : গ্রেপ্তার- ২

অলিউল্লাহ ইমরান, বরগুনাঃ
পূর্ব শত্রুতার সূত্রপাত নিয়ে কথা কাটাকাটির পরে জোর করে ধরে নিয়ে ছুড়ির আঘাতে রক্তাক্ত গুরুতর আহত যুবক হাসপাতালে।
বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) বিকেল ৪টার দিকে বরগুনা সদর উপজেলার, ঢলুয়া ইউনিয়নে, ২নং ওয়ার্ডের, উত্তর ফুল ঢলুয়া গ্রামের, জাহাঙ্গীর হোসেন এর ছেলে মোঃ জামাল (২৫)কে পূর্ব শত্রুতার রেশ ধরে একই গ্রামের কালামের ছেলে সুমন(২৫) কথা-কাটাকাটি করলে, এক পর্যায়ে জোর করে দোকান থেকে ধরে নিয়ে সুমনের পকেটে থাকা ছুড়ি দিয়ে আঘাত করলে মাথার দুই জায়গায় ক্ষত হয়ে গুরুতর আহত হয়। পরে স্বজন ও স্থানীয়রা উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাকে ভর্তি দিলে তিনি এখন চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।
ঘটনা স্থলে গিয়ে যানা যায়, পূর্বে ইলেক্ট্রনিক কাজ নিয়ে কোন্দল নিয়ে কথা কাটাকাটি হলে, সুমন জামালকে মারধর করলে জামাল একটি দোকানে গিয়ে আশ্রয় নেয়, সেখান থেকে তাকে জোর করে ধরে নিয়ে পকেটে থাকা ছুড়ি দিয়ে মাথায় আঘাত করলে গুরুতর অবস্থায় ঘটনা স্থলে অজ্ঞান হয়ে পরে যায়! তা দেখে স্থানীয় মানুষ দৌড়ে আসলে তৎক্ষনাৎ সুমন ঘটনা স্থল থেকে পালিয়ে যায়!
প্রতিবেশী ইউসুফ আলি বলেন, সুমন এলাকার মধ্যে খুবই উশৃংখল। এরকম ঘটনা এর আগে আরো অনেক ওর নামে আছে। এমন কি আমাকেও মারতে চাইছে একটুর জন্য বেচেঁ গেছি।
একই এলাকার প্রতিবেশী টুটুল (মহিলা) বলেন, আজকের ঘটনা একদম সত্যি। আমার নিজের চোখের সামনে ওরে ছুড়ি দিয়ে কোপ দিছে মাথায়। ওর কাছে ছুড়ি দেখে ডরে কাছে যেতে পারিনি!
ইউপি চেয়ারম্যান মুঠো ফোনে বলেন, আমি আজকের খবর পেয়েছি। তথ্য সূত্রে জানতে পারি আজকে মাদকাসক্ত সুমন জামালের মাথায় ছুড়ি মারলে ২ স্থানে জখম হয়। এই সুমন নামের ছেলেটি বখাটে, খুবই উশৃংখল, এলাকার চিহ্নিত  মাদক কারবারি। এর আগেও অনেক অভিযোগ আছে। তবে আমাদের মানে না সে কখনো। তবে আইনের আওতায় এনে কঠিন বিচার হওয়া উচিত। তিনি আরও বলেন, বিচার না হলে এরকম ঘটনা আরো ঘটতে থাকবে। সহজ সরল যুবকরা ধংস হয়ে যাবে।
সদর থানার অফিসার ইনচার্জ কে এম তারিকুল ইসলাম বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি। ২জনকে গ্রেফতার করতে পেরেছি। মুল হোতাকে এখনো ধরতে সক্ষম হইনি।  আশাবাদী অতি তাড়াতাড়ি ধরতে সক্ষম হবো।