নেত্রকোণায় হু হু করে বাড়ছে চালের দাম, বিপাকে সাধারণ মানুষ 

সোলায়মান হোসাইন রুবেল, নেত্রকোণা প্রতিনিধি :
সারাদেশে তেলের দাম বাড়ার প্রভাব পড়েছে চালের বাজারে। নেত্রকোণার সব বাজারে সব ধরনের চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় পাল্লা দিয়ে ধানের দামও বাড়ছে হু হু করে। এদিকে দফায় দফায় চালের দাম বৃদ্ধির কারণে ক্রেতাদের নাভিশ্বাস উঠেছে।
নেত্রকোণা শহরের পৌর বাজার এবং বড় বাজার ঘুরে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধির ঘোষণার পরপরই নভেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহ থেকে জেলার সব বাজারে সব ধরনের চালের দাম বাড়তে শুরু করে।
নতুন ধান বাজারে ওঠার পরও নেত্রকোনায় চালের দাম বাড়ছে হু হু করে। যার প্রভাব পড়ছে নেত্রকোণার খেটে খাওয়া মধ‍্যবিত্ত পরিবারের মানুষের ওপর। চালের দাম বাড়ার কারণে বেড়ে গেছে খরচ। খুচরা বাজারে সব ধরনের চালের দাম কেজি প্রতি ২ থেকে ৩ টাকা বেড়েছে।
নেত্রকোণার চাল কল মালিকরা বলছেন, ধানের দাম বেশি থাকার কারণে চালের বাজারে এই প্রভাব পড়ছে। সেই সঙ্গে ডিজেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় বেড়েছে পরিবহন খরচ। তাই চালের দামও বাড়ছে।
এখন চলছে আমন ধানের ভরা মৌসুম। নেত্রকোনার অধিকাংশ মাঠ থেকে ধান কেটে ঘরে তোলায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষকরা।
এ সময় চালের দাম কম থাকার কথা থাকলেও খুচরা বাজারে কেজি প্রতি চালের দাম বেড়ে গেছে ২ থেকে ৩ টাকা।
চালের বড় মোকাম নেত্রকোণার হিরণপুর, রাজুর বাজার, মোহনগঞ্জ, কলমাকান্দা, কেন্দুয়া, ও বারহাট্টায় মিল গুলোতে ও বেড়েছে চালের দাম। আর দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম চালের মোকাম নেত্রকোণায় চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় সারা জেলায় এর প্রভাব পড়েছে।
আমন ধানের ভরা মৌসুমে চালের দাম বেড়ে যাওয়ায় হতাশ ও ক্ষোভ জানিয়েছেন সাধারণ ক্রেতারা।
নেত্রকোণার হিরণপুর এলাকার চাল ব্যবসায়ী একতা অটো রাইচ মিলের মালিক জানান, কৃষকরা যাতে লাভবান হতে পারেন সেজন্য সরকারই ধানের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।
সরকার ১০৮০ টাকা মণ দরে আমন ধান কিনছে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে। একদিকে ডিজেলের মূল্য বৃদ্ধি সেই সঙ্গে চাহিদা বেড়ে যাওয়ার কারণে ও কৃষকরা বাজারে ধানের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।
যে কারণে বাজারে চালের দাম বাড়তির দিকে।
নেত্রকোণা জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্য মতে, জেলায় এবার জমিতে আমন ধান চাষ ভালো হয়েছে। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও বেশি।
এ বিষয়ে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক কর্মকর্তা বলেন, বাজারে চালের এই দাম ভাড়ার বিষয়টি স্হায়ী নয়, আমরা চাল ব‍্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে চালের দামের বিষয়টি দ্রুত সমাধান করবো।
নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আবদুর রহমান বলেন, বাজারে চালের দাম ভাড়ার বিষয়টি দ্রুত সমাধানের ব‍্যবস্হা করছি, আমি জেলার চাল কল মালিকদের সাথে কথা বলে দ্রুত চালের বাজার নিয়ন্ত্রণ করার জন্যে ব‍্যবস্হা গ্রহণ করছি। আর আমাদের জেলা প্রশাসনের ম‍্যাজিষ্টেটরা সার্বক্ষণিক মাঠে আছে বাজারে যদি কোনো চাল ব‍্যবসায়ী চালের উপর প্রভাব ফেলে তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব‍্যবস্হা গ্রহণ করা হবে।