চাঁদপুর-শরীয়তপুর সড়কে ১২ ঘণ্টা পর ২ ঘন্টা যান চলাচল শুরু করে আবার বন্ধ

এমরান হোসেনে লিটনঃ
চাঁদপুর- শরীয়তপুর  সড়কের হাসা মাদ্রাসার পশ্চিম দিকের ঝিলের পাশে আঞ্চলিক মহাসড়কের রাস্তায় বড় ধরনের গর্তের কারনে  পণ্য বোঝাই ট্রাক হেলে গিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। এলাকাবাসী ও সড়ক বিভাগের কর্মীরা এসে সংস্কার কাজ শুরু করেছেন। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে রাস্তা মেরামত করে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করার আশা করছেন চাঁদপুর সড়ক বিভাগ।

চাঁদপুর-শরীয়তপুর এ সড়ক দিয়ে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার পণ্যবাহী ও যাত্রীবাহী যানবাহন চট্টগ্রাম অঞ্চলে যাতায়াত করে। এ কারণে দুর্ঘটনা কবলিত স্থানের দুই পাশে দুই শতাধিক গাড়ি আটকা পড়েছে। এবং গতকাল রাত এগারোটা হতে আজ বুধবার বিকেল ছয়টা পর্যন্ত যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শী ও দুই দিকের আটকা পড়া যানবাহনের ড্রাইভার ও হেলপাররা বলেন।

তবপ চাঁদপুর সড়ক বিভাগের উপসহকারী প্রকৌশলী মামুনুর রশিদ জানায়, চাঁদপুর-শরীয়তপুর সড়কের হরিনা ফেরি ঘাট হইতে ভাটিয়ালপুর চৌরাস্তা পর্যন্ত প্রায় ৯ কিলোমিটার রাস্তা। তিনি বলেন দুর্ঘটনা কবলিত স্থানে একটি মাছের ঘের থাকার কারণে মাল বোঝাই বিশাল বিশাল ট্রাক এই জায়গায় আসলে রাস্তা দেবে যায়। এতে করে ট্রাকগুলো একদিকে হেলে যায় এবং আটকা পড়ে। তিনি আরো বলেন সকাল ১০ টার দিকে দুই দিকের যানবাহন কয়েক ঘন্টা চলাচল স্বাভাবিক করেছিলাম। পরে একটি বড় কাবার ব্যান পড়ে আবার রাস্তা বন্ধ হয়ে যায়।আমরা দ্রুত গতিতে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছি। তবে হরিনা ফেরিঘাট দিয়ে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক আছে বলে তিনি জানান।

অন্যদিকে ভাটিয়ালপুর চৌরাস্তার উত্তর দিকে লক্ষীপুর থেকে চাঁদপুরের দিকে ছেড়ে আসা আনন্দবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার একপাশে পড়ে যায়। এতে করে সোহেল মিজি নামের একজন পথচারী সাইকেল চালক মৃত্যুবরণ করেন। এবং ৩০ জন যাত্রী মারাত্মকভাবে আহত হন। আনন্দবাসটি বর্তমানে ফরিদগঞ্জ থানার হেফাজতে রয়েছে।