একট্রলারে ৮৭ মন ইলিশ! ২৭ লক্ষ টাকায় বিক্রী

অলিউল্লাহ ইমরান, বরগুনাঃ  
বঙ্গোপসাগরে  ভরা ইলিশের মৌসুমে হঠাৎ  দেখা মিললো ঝাকেঁ ঝাঁকে রুপালী ইলিশ। এক ট্রলারেই ধরা পরলো  ৮৭ মণ ইলিশ! ট্রলারের ওই ইলিশ মাছ  পাথরঘাটা মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে ২৭ লাখ টাকায় বিক্রি হয়েগেছে মূহুর্তেই !
শুক্রবার (১৩ আগষ্ট) দুপুর ১২টার দিকে দেশের বৃহত্তম মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে বরগুনার পাথরঘাটা (বিএফডিসি) এলাকার এখবরটি তাৎক্ষণিক চারদিকে ছড়িয়ে পরলে অনেকেই এই মাছ এবং তার বিকিনিকি দেখতে ছুটে আসেন।
 এফ.বি. সাইফ-২ নামক মাছধরা ওই ট্রলারটি  মাছনিয়ে শুক্রবার দুপুরে বিএফডিসি ঘাটে অবতরণের সঙ্গে সঙ্গে ইলিশগুলো  ক্রয় করেন সেমার্স সাইফ ফিশিং কোম্পানী এন্ড কমিশন এজেন্ট।
শিল্পপতি মোস্তফা ইকবাল হোসেন মানিকের এফ.বি. সাইফ ২ ট্রলারের জেলেমাঝি  জামাল হোসেন বলেন, কয়েকদিন আগে বাজার সদায় নিয়ে গভীর সাগরে মাছ শিকার করতে যান। সাগরে গিয়ে মাছ ধরার জন্য কয়েকটি খেও(জ্বাল ফেলে) দিতেই প্রচুর পরিমাণে মাছ ধরা পরে। ট্রলারের মাছ রাখার ধারন ক্ষমতা পুরণ হয়েগেলে দ্রুত তারা পাথরঘাটা মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে (বিএফডিসি) ঘাটে ফিরে আসেন। শুক্রবার সকাল থেকেই মাছ বিক্রি শুরু হয়ে দুপুর ১২টায় তা শেষ হয়।
হঠাৎ একটি ট্রলারে এতো পরিমাণ মাছ ধরা পরায় বিএফডিসি মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে উৎসুক মানুষের ভিড় পড়ে। স্থানীয় অনেকের মুখেই শোনা গেলো এতো বড় বড় সাইজের ইলিশ এবং একই ট্রলারে এতো পরিমাণ মাছ খুব শিগগিরই দেখিনি। একএকটি মাছের ওজন হবে দেড় থেকে দুই কেজি।
বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, পাথরঘাটার মৎস্য খাতে এটি একটি নজির।একটি ট্রলারে বিপুল পরিমান ইলিশ ইতোপূর্বে দেখিনী।
মেসার্স সাইফ ফিশিং কোম্পানীর স¦ত্বাধিকারী পাথরঘাটা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তফা গোলাম কবির বলেন, বর্তমানে ইলিশের ভরা মৌসুম। কিন্তু এখন পর্যন্ত কাঙ্খিত ইলিশ জেলেদের জালে ধরা না পরলেও একটি ট্রলারে এতো মাছ নজিরবিহিন। আমরা মহান সৃষ্টিকর্তার নিকট শুকরিয়া জ্ঞাপন করছি।