অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, অতিষ্ট যাত্রীরা

সাইফুল্লাহ(মোহাম্মদপুর প্রতিনিধি) :

পেট্রোলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় বেড়ে গেছে ভাড়া। তবে সেটা কতটুকু পরিমাণ বাড়ছে নাকি অর্ধেক। বিআরটিএ কর্তৃক নির্ধারিত ভাড়া ১ টাকা ৪২ পয়সার  পরিবর্তে ১ টাকা ৮০ পয়সা নেয়া হবে দূরপাল্লার বাসগুলোতে। ঢাকা এবং চট্টগ্রাম মহানগরের বাস ১ টাকা ৭০ পয়সার পরিবর্তে ২ টাকা ১৫ পয়সা নেয়া হবে। তবে মিনিবাসের ভাড়া ১ টাকা ৬০ পয়সার পরিবর্তে ২ টাকা ০৫ পয়সা নির্ধারিত করা হয়েছে। বাস্তবে দেখলে তার ব্যতিক্রম। মোহাম্মদপুর থেকে ঘাটারচর নেয়া হচ্ছে ১০ টাকার ভাড়া ১৫ টাকা এবং মোহাম্মদপুর থেকে ঢাকা উদ্যান ৫ টাকার ভাড়া ১০ টাকা ও গাবতলী ১০ টাকার ভাড়া ১৫ টাকা। তবে অধিকাংশ সিএনজি চালিত এবং চার্জিং গাড়ি পূর্বের ভাড়ায় বহাল আছে। কোন অতিরিক্ত ভাড়া নেয়া হচ্ছে না এ সকল রোডে।
তবে গাবতলী বাস টার্মিনালে সরকারী সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভাড়া রাখা হচ্ছে বলে পরিলক্ষিত হয়। ঢাকা হতে খুলনা পূর্বের ভাড়া ৫০০ টাকা হলে এখন সেটা ৬০০ টাকা হয়েছে। আবার ঢাকা হতে বরিশাল ভাড়া ৫৫০ টাকা হলে এখন সেটা ৬৫০ টাকা হয়েছে।
অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ে অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ। ভাড়া বাড়লেও বাড়েনি আয়। তাই কিভাবে অতিরিক্ত ভাড়া দিবে তাতে চিন্তিত চাকুরিতে যাওয়া প্রতিদিনের মানুষ। পূর্বের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ ভাড়া গুনতে হচ্ছে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস কিনতে হিমশিম খাওয়ার পাশাপাশি আবার যাতায়াত ভাড়া বৃষ্টি এটা কোন ভাবে মানতে পারছে না সাধারণ মানুষ।
অতিরিক্ত ভাড়া আদায় বন্ধ করতে গাড়িতে স্টিকার লাগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিআরটিএ।