সালিশি বৈঠকের কথা বলে ডেকে নিয়ে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানের মারধর, আহত ২ 

জামালপুর প্রতিনিধি :
জামালপুরের মেলান্দহের দুরমুঠ ইউনিয়নের সাবেক  চেয়ারম্যান বাদল শালিস বৈঠকে ডেকে নিয়ে হত্যার উদ্দ্যেশ্যে শাহাজাহান (৫০) ও তার পরিবারের আরো ২ জনকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে।
আহত শাহাজাহান জানান, সাবেক চেয়ারম্যান বাদল এর সাথে বেশকিছুদিন যাবত আমার সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিলো। এ নিয়ে প্রায় ২০ দিন আগে আমাদের মাঝে কথা-কাটাকাটি হয়। গত শুক্রবার (০৩ জুলাই )বিকালে পূর্বের জমি জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে শালিস মীমাংসায় ডেকে নেয়। আমরা সেই সালিশি বৈঠকে উপস্থিত হলে  বাদল  চেয়ারম্যান এর নেতৃত্বে মুকুল খান,মিরাজ,আল আমিন ও ফাত্তাহ  হামলা চালিয়ে গুরুতর আহত করে শাহাজান,তার স্ত্রী মাজেদা বেগম (৪০), ছেলে মজনু ইসলাম (২২) কে । অতর্কিত এই হামলায় শাহজাহানের হাত ভেংগে যায় ও তার স্ত্রীকে কিল-ঘুষি দেয় তারা। স্থানীয়রা গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে শাহাজাহান ও তার স্ত্রী মাজেদাকে জামালপুর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে।
এলাকাবাসীরা জানান, সাবেক চেয়ারম্যান তার প্রভাব বিস্তার করে বিভিন্ন সময় এলাকায় জমি দখল থেকে শুরু করে নানা অত্যাচার নির্যাতন করেন। শাহাজাহান একজন কৃষক। দিন আনে দিন খায়। তাকে হত্যার উদ্দ্যেশ্যে ডেকে নিয়ে মারধরের সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন এলাকাবাসী।
অভিযুক্ত সাবেক চেয়ারম্যান বাদল জানান, আমি কোন মারধর করিনি। এইসব বর্তমান চেয়ারম্যান জুবেরী সাহেবের বানানো। শাহাজাহান ও তার পরিবার আমার ভাই মুকুলকে কয়েকদিন আগে হামলা করেছে ও টাকা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে।
মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  রেজাউল ইসলাম বলেন, আমিও বিষয়টি শুনেছি। শোনার পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।