লালমনিরহাট বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে ত্রান বিতরন করলেন উপজেলা চেয়ারম্যান সুজন

মিজানুর রহমানঃ

লালমনিরহাট সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সুজন পানি বন্দি গোকুন্ডা, খুনিয়াগাছ, রাজপুর ইউনিয়নের বন্যা কবলিত ১০০০পরিবারের মাঝে ত্রান বিতরন করলেন।তিস্তা ও ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় লালমনিরহাট সদর উপজেলার দশ হাজার মানুষ পানি বন্দি রয়েছেন।

মঙ্গলবার ৩০শে জুন সকাল ১০টায় লালমনিরহাট সদর উপজেলার খুনিয়াগাছ ইউপি কার্যালয়ে রাজপুর ও খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের পানি বন্দি সাতশত পরিবারের মাঝে ত্রান বিতরন করা হয়। প্রতিটি পরিবার কে দশ কেজি চাল ও দুই কেজি আলু হাতে তুলে দেন লালমনিরহাট সদর উপজেলার চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান সুজন। এ সময় ত্রান বিতরনে উপস্থিত ছিলেন খুনিয়াগাছ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান আমু, খুনিয়াগাছ ইউনিয়ন আওয়ামিলীগ সভাপতি মোজাম্মেল হোসেন মানিক,উপজেলা ত্রান ও পুর্নবাসন কর্মকর্তা মশিয়ার রহমান ও রাজপুর ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ।

লালমনিরহাট সদর উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে গোকুন্ডা ইউনিয়নের নদী ভাঙন কবলিত নিঃস্ব পচিঁশটি পরিবার কে উপজেলা ত্রান তহবিল থেকে সাত হাজার টাকা ও দশ কেজি করে চাল তুলে দেন সুজন,এ সময় উপস্থিত ছিলেন গোকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা।
এছাড়া গোকুন্ডা ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে তিন শত পানি বন্দি পরিবার কে উপজেলা পরিষদের ত্রান তহবিল থেকে ত্রান সহায়তা দেওয়া হয়।

টানা বর্ষন ও পাহাড়ি ঢলে লালমনিরহাট জেলার তিস্তা ও ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় সদর উপজেলায় দশ হাজার মানুষ পানি বন্দি হয়ে পড়েন।মানুষের বসত বাড়ি ফসলি জমি তলিয়ে গিয়ে পানি বন্দি মানুষগুলো অসহায় জীবন যাপন করছেন।সরকারি এই ত্রান সহায়তায় পরিবার গুলোর মাঝে কিছুটা স্বস্তি এনে দিয়েছে।