রাজশাহীর বাঘায় নারী ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বিরোধি বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত

 সুব্রত কুমার, বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধিঃ-

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পৃথকভাবে ৭টি ইউনিয়ন এবং ২টি পৌরসভায় নারী ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বিরোধি বিট পুলিশিং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৭ অক্টোবর শনিবার সকাল ১০ টায় সারাদেশ ব্যাপী নারী নির্যাতন,  ধর্ষণ, যৌন হয়রানী ও নারীর প্রতি সহিংসতার প্রতিবাদে একযোগ পৃথক পৃথক স্থানে এই মানববন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বাঘা পৌরসভার ৮, ৯ ও ১০ নং বিট পুলিশিং এর আয়োজনে উপজেলা পরিষদের হলরুমে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন বাঘা  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা। প্রধান অতিথি উপস্থিত ছিলেন উপজেলা  পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট লায়েব উদ্দিন লাভলু। প্রধান বক্তা ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম বাবুল।

আয়োজিত সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাঘা থানা ওসি নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, উন্নত দেশের আদলে বাংলাদেশে প্রতিষ্ঠিত বিট পুলিশিং সেবা কার্যক্রমের মাধ্যমে শুধু ধর্ষণ নয়, যে কোন অন্যায়ের বিরুদ্ধে ন্যায় ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করছি। এ জন্য জনগণকে সোচ্চার হয়ে পুলিশকে সহায়তা করার আহবান জানান।

অন্য দিকে উপজেলার ০৪ নং মনিগ্রাম ইউনিয়নের আয়োজনে নারী ধর্ষণ ও নারী নির্যাতন বিরোধী বিট পুলিশিং সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,০৪ নং মনিগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম, উক্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ০৪ নং মনিগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদের সম্মানিত চেয়ারম্যান জনাব মোঃ সাইফুল ইসলাম। এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন স্কুল,কলেজের প্রধানগণ। উক্ত সমাবেশে আলোচকগন নারী ধর্ষণ ও নির্যাতনে প্রতিরোধে সবাইকে সচেতন হওয়ার পাশাপাশি সবাইকে একতাবদ্ধ হয়ে প্রতিরোধ করার আহ্বান জানান। সমাবেশে সভাপতি ও প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পুলিশ পরিদশক(তদন্ত) জনাব মোঃ আব্দুল বারী। অনুষ্ঠান টি পরিচালনা করেন মনিগ্রাম ইউনিয়নের বিট ইনচার্জ এস আই (নিঃ) মোঃ নাজমুল হক ও এ এস আই (নিঃ) লাবলু মিয়া। ডাঃ মোঃ সিরাজুল ইসলাম,রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগ সদস্য মোঃ আফজালুর রহমান রাজীব প্রমুখ।

এসময় উন্মুক্ত ভাবে বিট পুলিশের কাছে নারীদের আইনি সহায়তার কথা তুলে ধরেন মনিগ্রাম নিম্ন মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী লাবনি আক্তার।

আয়োজিত সমাবেশে ধর্ষণের বিরুদ্দে সবাইকে প্রতিবাদী হওয়ার আহবান জানান বক্তারা। বলেন, যে দেশের প্রধানমন্ত্রী ও মাননীয় স্পিকার নারী, সেই দেশে নারী নির্যাতন মেনে নেয়া যায়না। আমরা সোনার বাংলায় নারী-পুরুষ এক সাথে কাজ করতে চাই। এ জন্য দরকার সম্মিলিত প্রচেষ্টা এবং সামাজিক আন্দোলন।