মোংলায় আ.লীগের মেয়র প্রার্থীর ২৩ দফা ইশতেহার ঘোষণা

এম এইচ শান্ত
বাগেরহাট জেলা প্রতিনিধি :
মোংলার রাজনীতির গতিপথ নির্ধারিত হবে এই নির্বাচনে। দীর্ঘ সময় রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড করতে গিয়ে যদি কেউ আমার কিংবা আমার পরিবারের কোনো কর্মকাণ্ডে মনঃক্ষুণ্ন হয়ে থাকেন, আশা করি আমাকে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন। আমি আওয়ামী লীগ-দলীয় প্রার্থী হিসেবে মেয়র নির্বাচিত হলেও কখনোই দলের বা পরিবারের মেয়র হব না।’
মঙ্গলবার(১২ই জানুয়ারী) ২৩ দফা নির্বাচনী ইশতেহারে লিখিত বক্তব্যে আওয়ামী লীগের মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আঃ রহমান এসব কথা বলেন।
বেলা ১১টায় মোংলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে এক জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে শেখ আঃ রহমানা তাঁর নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেন। এ সময় বাগেরহাট জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোল্যা আঃ রউফ,মোংলা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম হোসেন,মোংলা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব শেখ কামরুজ্জামান জসিম,সাংগঠনিক সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন মিলন,মোংলা পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আঃ সালাম,মোংলা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান ইকবাল হোসনে,ইউপি চেয়ারম্যান মোল্যা তারিকুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
নির্বাচনী ইশতেহারে বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আঃ রহমান উল্লেখ করেন, মেয়র পদে নির্বাচিত হলে তিনি,পৌরসভার প্রতিটি ঘরে সুপেয় পানির ব্যবস্থা,পৌরবাসীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করণ,পানি নিস্কাসনের জন্য সরকারী খাল পূনঃখনন করণ,পৌরসভার মধ্যে বড় পুকুরগুলোর সস্কার,ময়লা আবর্জনা পরিস্কার করে ডাম্পিংয়ের ব্যবস্থা করা,বিভিন্ন ওয়ার্ডের অবহেলিত রাস্তাঘাটের উন্নয়ন,বাজার এলাকায় গণ শৌচাগার স্থাপন,শহর পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ও মশা নিধনের ব্যবস্থা,মসজিদ,মাদ্রাসা,স্কুল,কলেজ,এতিমখানা,মন্দির ও গীর্জার উন্নয়ন,মাদক ও নেশা মুক্ত পৌরসভা গঠন,আধুনিক পৌর মিলনায়তন নির্মাণ,আধুনিক পার্ক নির্মান,মাছ বাজার এবং মাংস বাজার স্থানান্তরিত করে আধুনিক বাজারে রুপান্তরিত করা ও গবাদি পশু জবাইখানা নির্মান করা,পৌরসভার পক্ষ হতে কবরখানার উন্নয়ন ও একটি শ্মশানঘাটের ব্যবস্থা,কুকুর নিয়ন্ত্রণ ও জলাতঙ্ক রোগ থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা,পৌরসভায় বসবাসকারী বিভিন্ন বস্তিবাসীদের জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন,ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পূনঃবাসনের ব্যবস্থা,ড্রেনেজের ব্যবস্থা,শহরের বিভিন্ন স্থানে যাত্রী ছাউনি নির্মাণ করা,শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম আধুনিকায়ন করা,মোংলা কাচা বাজারকে আধুনিকায়ন,মেরিন ড্রাইভের রাস্তার সৌন্দর্য বর্ধন এবং প্রয়োজনীয় ব্রীজ কালভার্ড স্থাপনসহ নগরের উন্নয়নে আরও কিছু কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নে উদ্যোগ নেবেন।
প্রসঙ্গত,বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আঃ রহমান দীর্ঘদিন ধরে মোংলা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করে আসছেন।
আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী ইশতেহার প্রসঙ্গে সুশাসনের জন্য নাগরিক—সুজন মোংলার সাধারণ সম্পাদক নুর-আলম বলেন, ‘যেসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন,বিগত মেয়র জুলফিকার আলী এসব সমস্য মিটাতে পারেননি, এগুলো মোংলার মানুষের নিত্যনৈমিত্তিক সমস্যা। আশা করি, তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর সেগুলো মনে রাখবেন। ইশতেহার পড়ে মনে হলো মোটামুটি সব দিক আনা হয়েছে।