মুজিব বর্ষের প্রতিশ্রুতি, জোরদার করি দুর্যোগ প্রস্তুতি

মোঃ রুহুল আমিন, শরীয়তপুর প্রতিনিধি :
এই স্লোগানের মধ্যদিয়ে ১৩ অক্টোবর বুধবার বিকাল ৩ টায় শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ উপজেলায় নানান আয়ােজনে উদযাপিত হয়েছে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস ২০২১। উপজেলা পরিষদের শহীদ আক্কাস-শহীদ মহিউদ্দিন মিলনায়তনে মুজিব শতবর্ষে আন্তর্জাতিক দুর্যোগ প্রশমন দিবস ও সিপিপির ৫০ বছর উপলক্ষে আলােচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
ভেদরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর-আল-নাসীফ এর সভাপতিত্বে আলােচনা সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার তাপস বিশ্বাস, উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মােঃ সমেশ, ভেদরগঞ্জ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির, উপসহকারী প্রকৌশলী
মােঃ গিয়াস উদ্দিন, ভেদরগঞ্জ উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তাসলিমা আক্তার।
সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তানভীর
আল নাসীফ বলেন, শরীয়তপুর জেলার মধ্যে পদ্মা মেঘনা বিধৌত ভেদরগঞ্জ উপজেলাকে দুর্যোগপূর্ণ এলাকা হিসেবে গন্য করা হয়। প্রতি বছর বন্যা, ঝড়-বাদল সহ নানা কারনেও আগুনে পুড়ে আমাদের উপজেলার জনগণের জান ও মালের ব্যাপক ক্ষতি হয়। নিজেদের একটু সচেতনতায় দুর্যোগের হাত থেকে কিভাবে জান মাল সহ আমাদের নানা উপকরণ রক্ষা করা যায়, সে বিষয়ে নানা কৌশল জানতে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার
২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় প্রচেষ্টায় করে চলছে   দুর্যোগ মােকাবেলায়।
তিনি আটো বলেন দুর্যোগ মােকাবেলা বিষয়ে সবার সচেতনতা প্রয়ােজন।  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস কর্মসূচি প্রণয়নের পথিকৃৎ। স্বাধীন বাংলাদেশে তিনিই প্রথম
ঘূর্ণিঝড়, বন্যা, জলােচ্ছাস ইত্যাদি প্রাকৃতিক দুর্যোগ থেকে জনগণের জানমাল রক্ষায় ‘মুজিব কিল্লা’ নির্মাণ করেন। তিনি আরাে বলেন, পূর্ব প্রস্তুতি নিশ্চিত করার কারণে আজ প্রাকৃতিক দুর্যোগে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি ন্যূনতম পর্যায়ে নামিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে। দেশের জনগণকে উন্নয়নের অংশীদার করে
তাদের জীবনমানের উন্নতির জন্য সরকার কাজ করছে।