ফেনীতে রোমিও জুলিয়েট খ্যাত এক মানসিক ভারসাম্যহীন দম্পতি সবার ভালবাসা চায় ভিক্ষা নয়

মোস্তফা কামাল বুলবুল ::

এই শহর ফেনীতে রোমিও জুলিয়েট খ্যাত এক মানসিক ভারসাম্যহীন দম্পতির একদা সুখ ছিল, ছিলনা সুখের ঠিকানা, রাত কাটাতেন সরকারী অফিস আদালতের বারান্দায়। হঠাৎ একরাতে তাদের একমাএ সন্তানটি চুরি হয়ে যায়। তার পর থেকে উদভ্রান্ত। কাটাচ্ছিলেন অনাহারে অর্ধহারে যাযাবর জীবন।২০১৭ সালের ১৫ মে তাদের কোল জুড়ে আরেকটি সন্তান আসে কন্য সন্তান তার নাম রেখেছিল তারা রানী। কিন্তু জম্মের ২দিন পরেই তাদের সেই আশার প্রদীপ রানীও মারা যায় । তার পরে মানসিক ভাবে আরো বেশি ভেঙ্গে পড়ে সেই দম্পতি।মেয়ের শোক আর অভাব অনটনে গত ০৫ জুন পবিত্র ঈদুল ফিতরের দিন মারা গেছেন সেই জুলিয়েট।

ফেনী পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর  মাহতাব উদ্দিন মুন্না ভাইয়ের সহযোগিতায় জুলিয়েটের দাফন সম্পন্ন হয়েছে ফেনী পৌর কবরস্থানে তার মেয়ে রাণীর পাঁশে।সেদিন রোমিও কাউন্সিলরকে বলেছিল সে সুস্থ জীবনে ফিরতে চায়।

তারই ধারাবাহিকতায় আজ সকালে আবু বক্কর সিদ্দিক ( রোমিও) কে একটি রিক্সা এবং তার বসবাস করার জন্য গৃহস্থলির প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র হস্তান্তর করেন তিনি।এসময় ফেনীর সাংবাদিক, ও স্থানীয় গর্ণমান্য ব্যাক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

(রোমিও) আবু বক্কর সিদ্দিক জানায়, আর সে ভিক্ষা করবেনা, কাজ করে খাবে, তাই সে সমাজের সবার কাছে দোয়া ও ভালবাসা চেয়েছেন।