ফরিদপুরের দুই বহিস্কৃত নেতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাড়ি, ব্যাংকের টাকা সীজ

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা :

ফরিদপুর শহর আওয়ামীলীগের বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই প্রেসক্লাবের বহিস্কৃত সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের সকল বিষয়-সম্পত্তি সীজ করেছে সিআইডি। এ ঘটনায় ফরিদপুরের সাধারণ মানুষের মধ্যে বিরাজমান আতংক অনেকটা দুর হয়েছে বলে শহরবাসী জানিয়েছে।
সিআইডি জানিয়েছে, ফরিদপুর শহর আওয়ামীলীগের বহিস্কৃত সাধারণ সম্পাদক অসীম ক্ষমতাধর অনুপ্রবেশকারী সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ফরিদপুর প্রেসক্লাব থেকে বহিস্কৃত সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান ব্যাংকে গচ্ছিত টাকসহ বিষয়াদি সম্পত্তি সীজ করেছে সিআইডি।
সিআইডির ঢাকা মেট্টো পশ্চিম বিভাগের পুলিশ পরিদর্শক এসএম মিরাজ আল মামুন জানান, জেলা আওয়ামীলীগের বিতর্কিত এই দুই নেতা দলে অনুপ্রবেশ করে টেন্ডারবাজী, খুন খারাবী, চাঁদাবাজিসহ নানা অপকর্ম করে হাজার হাজার কোটি টাকা আতœসাত করেছে। এ ব্যাপারে ঢাকার কাফরুল থানায় গত ২৬ মে ওই দুই ভায়ের নামে দুই হাজার কোটি টাকা অবৈধভাবে কামিয়ে বিশাল ভুসম্পত্তির পাশাপাশি বিদেশে টাকা পাচার করেছে মর্মে মানি লন্ডারিং এর মামলা দায়ের করা হয়। ২৮ মে অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা নিয়োগ প্রাপ্তি হয়ে ফরিদপুরে এসে অনুসন্ধানে বিষয়টির সত্যতা পান।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিআইডির এসপি উত্তম কুমার জানান, গ্রেফতারকৃত বরকত-রুবেলে দেশের সরকারী-বেসরকারী বিভিন্ন ব্যাংকে একাধিক একাউন্টে শতশত কোটি টাকা মজুদ রয়েছে।
অপরদিকে ফরিদপুরের সাধারন জনগন কিছুটা শান্তি ফিরে পেয়েছেন তবে রহস্যের জাল এখনো খুলেনি । রুবেল – বরকত সহ আরো ১০/১২ জন কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছে কার প্রশ্রয়ে তারা এই দুর্নীতি , মামলা- হামলা , নির্যাতন করেছে তার নাম প্রকাশসহ গ্রেপ্তারের দাবি জানান ।