পিরোজপুরে যৌতুকের জন্য আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধুকে হত্যা

পিরোজপুর প্রতিনিধিঃ

পিরোজপুরের নাজিরপুরের মালিখালী ইউনিয়নের দক্ষিন ঝনঝনিয়া গ্রামের মোসাঃ রহিমা বেগম (৩০) নামের এক গৃহবধুকে যৌতুকের জন্য গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে। নিহত ওই গৃহবধু ওই গ্রামের আলমগীর হেসেনের কন্যা। ওই গৃহবধু মঙ্গলবার (৩০জুন) সকালে গোপালগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা জান বলে ওই ইউনিয়েনর ইউপি সদস্য মো. আতাহার আলী শেখ নিশ্চিত করেছেন।
নিহতের ভাই মোঃ হাসান শেখ জানান, গত ৬ বছর আগে জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার ঘোষের টিকিকাটা মৃত শামসুল আলমের ছেলে ইমাম হোসেনের সাথে তার বোন রহিমান বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ভগ্নিপতি (নিহতের স্বামী ) ইমাম হোসেন প্রায়ই তাকে যৌতুকের জন্য মারাধর করে আসছে। গত ১১জুন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে আবারও যৌতুকের টাকার জন্য চাপ দেয়। এ সময় সে টাকা আনারতে অপারগতা প্রকাশ করলে তাকে মারধর করা হয়। পরে তাকে হত্যার জন্য তার পড়নে থাকা শাড়ি কাপড়ে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময়ে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে পরে ওই রাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হলে তাকে গোপালগঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার সকালে তার মৃত্যু হয়।
এ ঘটনায় পরের দিন ১২ জুন ওই গৃহবধুর ভাই মোঃ হাসান শেখ বাদী হয়ে ভগ্নিপতি (গৃহবধুর স্বামী) ইমাম হোসেন কে প্রধান আসামী করে ৫জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।
নাজিরপুর থানার অফিসার ইন চার্জ মো. মুনিরুল ইসলাম জানান, ওই গৃহবধুর ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।