ত্রাণ চাইতে গেলে লাথি দিয়ে ফেলে দেয়ার অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্বে!

অলিউল্লাহ ইমরান, বরগুনাঃ
বরগুনা সদর উপজেলার আয়লাপাতাকাটা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আকশাকুর রহমান ফিরোজের বিরুদ্বে মিনারা বেগম(৫০) নামের দরিদ্র মহিলা সাহায্য চাইতে গেলে প্রকাশ্যে তাকে লাথি দিয়ে ফেলে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ বেলা সাড়ে ১২ টার দিকে ইউনিয়নের কদমতলা বাজারে এ ঘটনা ঘটে, এবং অন্যন্য সময় অনেকেরে মারধর করেছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান।

মিনার বেগমের বাড়ী আয়লাপাতাকাটা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডের কেওড়াবুনিয়া গ্রামে। পেশায় একজন নারী শ্রমিক। আজ ইউনিয়ন পরিষদে বে-সরকারী সংগঠন ” সুশীলন” রাস্তার কাজের জন্য  ৫ জন নারী শ্রমিক বাছাই করে।

বাছাইয়ে মিনারা টিকতে না পেরে চেয়ারম্যানের নিকট সাহায্য (ত্রান) চাইতে গেলে চেয়ারম্যান প্রথমে তাকে ধমক দেন। মিনারা বেগম মোবাইলে অভিযোগে বলেন, চেয়ারম্যান আমাকে ধমক দিয়ে ঘুরে লাথি দিলে আমি মাটিতে পড়ে যাই।

চেয়ারম্যান আকশাকুর রহমান ফিরোজ মিনারা বেগমকে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এই মহিলা বিভিন্ন সময়ে পরিষদে আমার রুমে গিয়েও বিরক্তি করে। অশোভন কথা বলে। ইউনিয়নের ওয়ার্ড ভিত্তিক ত্রুান মেম্বরের মাধ্যমে পাবার পরও নিয়মিত বিরক্ত করে আসছে। আজ পরিষদ থেকে বের হবার পর আবার বিরক্ত করলে আমি তাকে বলি তোকে দরকার লাথি মেরে ফেলে দেয়ার, যাক এখান থেকে। আমি তাকে লাথি মারিনি।

এলাকার কয়েকজন বিষয়টিকে চেয়ারম্যানের বিরুদ্বে মেম্বরদের অপপ্রচার উল্লেখ করে বলেন,মেম্বররা চেয়ারম্যানের বিরুদ্বে জোট বেধেছে অনেক দিন আগেই। এ সুযোগে মিনারা বেগমকে ব্যাবহার করছে।