চরফ্যাসন ছাত্রদলের আলম- নয়ন গ্রুপের মধ্যে  সংঘর্ষ, আহত-৪

এম আবু সিদ্দিক, বিশেষ প্রতিনিধি।।

ভোলার চরফ্যাসনে বিএনপি নেতা আলম- নয়ন গ্রুপে ছাত্রদলের ঘোষিত কমিটির নিয়ে ছাত্রদল নেতা কর্মিদের মধ্যে  সংঘর্ষ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার মধ্য দিয়ে  চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।
শুক্রবার ২১ আগস্ট বিকাল ৪টায় শরীফ পাড়াস্হ কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতা নুরুল ইসলাম নয়নের বাসভবনে গ্রুপের সদ্য ভোলাজেলা ছাত্রদল কর্তৃক ঘোষিত চরফাসন উপজেলা, পৌর শাখা,
সরকারি কলেজ  ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটির পরিচিতি সভা চলছিল।
এসময়ে আকস্মিকভাবে বগি দা, লাঠিসোটা নিয়ে বিএনপির অপর কেন্দ্রীয় নেতা নাজিম উদ্দিন আলম গ্রুপের ঘোষিত ছাত্রদলের উপজেলা, পৌরশাখা ও সরকারি কলেজ শাখা ছাত্রদলের নেতা কর্মীরা হামলা চালায় নয়নের বাসভবনে সভা চলাকালে তার নেতা কর্মিদের উপর।
প্রায় ১৫মিনিট উভয় গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা আর উত্তেজনা চলে। অনেক্ষনব্যাপী সংঘর্ষ চলার পরে আলম গ্রুপের ছাত্রদল নেতা কর্মিরা নয়ন গ্রুপের  তোপের মুখে টিকতে না পেরে  এলাকা ত্যাগ করেছে। অপর দিকে আলম গ্রুপের এক ছাত্রনেতা জানিয়েছেন তারা বড়ধরনের সংঘাতের আশংকায় নিজ নিজ অবস্হানে ফিরে গেছেন উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে ছাত্রদলের ৪/৫ জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে তাৎক্ষনিক আহতদের নাম পাওয়া যায়নি। হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি চলে গেছেন। তবে মামলার ভয়ে কেউ হাসপাতালে ভর্তি হয়নি।
এই ঘটনায় শরিফপাড়া এলাকায় ব্যবসায়ী ও সাধারন মানুষের মধ্যে আতংন্ক বিরাজ করে।
গত জাতীয় সংসদ নির্বাচন থেকে চরফ্যাসনে বিএনপির মনোনয়ন নিয়ে দুইনেতার নেতা কর্মিরা  বিভক্ত দু’গ্রুপে।
চরফ্যাসন বিএনপির সহযোগী সংগঠন ছাত্রদলের মেয়াদ উত্তীর্ন  হলে গত ১৮ আগস্ট ভোলা জেলা ছাত্রদল সভাপতি নুরে আলম ও সাধারন সম্পাদক আল আমিন হাওলাদার স্বাক্ষরিত চরফ্যাসন উপজেলা, পৌরশাখা, সরকারি কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়।
এদিকে ক্ষুদ্ধ বিএনপির অপর গ্রুপের নেতা নাজিম উদ্দিন আলম সুপারিশক্রমে গত ১৭ জুলাই চরফ্যাসন উপজেলা বিএনপির সিনিঃ সহসভাপতি আমিরুল ইসলাম ও সাধারন সম্পাদক মোতাহার হোসেন আলমগীর স্বাক্ষরিত ১৭ জুলাই ঘোষণা করেছে উপজেলা পৌর শাখা ও সরকারি কলেজ শাখার ছাত্রদল কমিটি।
নুরুল ইসলাম নয়ন গ্রুপের সমর্থিত চরফ্যাসন উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক আরিফ ফরাজী ও সদস্য সচিব অনিক কাজী জানান, দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী জেলা ছাত্রদল সভাপতি ও সম্পাদক আমাদের কমিটি অনুমোদন দিয়েছে।
গঠনতন্ত্রানুযায়ী কোন উপজেলা বিএনপি ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণা করতে পারেনা। আগামী রাজনীতিতে চরফ্যাসনে কোন ভাড়াটিয়া বিএনপি নেতার স্হান হবেনা। আগামীতে স্হানীয় সন্তান নুরুল ইসলাম নয়ন পাবে বিএনপির মনোনয়ন। আজকের পরিকল্পিত এই  ঘটনায়  নাজিম উদ্দিন আলমের মদদ ছিল। আজ থেকে চরফ্যাসনে  রাজনীতিতে তাকে অবান্চিত ঘোষণা করা হল।
অপরদিকে ঘোষিত আলম গ্রুপের সমর্থিত চরফ্যাসন উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক আলী মর্তুজা ও সদস্য সচীব জাহান সিকদার জানান, নাজিম উদ্দিন আলম তাদের নেতা। তার নির্দেশনায় উপজেলা বিএনটির ঘোষিত কমিটি বৈধ। জেলা ছাত্রদলের স্বাক্ষরিত কথিত কমিটি উপজেলা ছাত্রদল মানেনা।
এদিকে শান্তির জনপদ চরফ্যাসনে দীর্ঘ প্রায় একযুগ রাজনৈতিক সহাবস্হান ও বিদ্যমান আইন শৃংখলা পরিস্হিতি স্বাভাবিক অবস্হা বিরাজের মধ্যে বিএনপির সহযোগি সংগঠন ছাত্রদলের অভ্যন্তরীন দন্ধে আর দু’ নেতার কোন্দল, সংঘাত আর সংঘর্ষের ঘটনায়  শান্তির জনপদে  আবারও অশনি সংকেত!
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নয়ন গ্রুপের এক নেতা  বলেন, নাজিম উদ্দিন আলম চরফ্যাসনে একযুগ রাজনীতি করে কোন উন্নয়ন করতে পারেনি, স্হানীয় এমপি সাবেক উপমন্ত্রী  জ্যাকবের অভূত উন্নয়নে তিনি চরফ্যাসনে লজ্জায় এলাকায় আসতে পারেছেন না।
অপরদিকে আলম সমর্থিত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা বিএনপির এক নেতা বলেন, নাজিম উদ্দিন আলম গত কয়েকবছর যাবৎ চরফ্যাসনের নেতা কর্মিদের কোন খোঁজখবর না রাখার কারনে নুরুল ইসলাম নয়ন কেন্দ্র তার অবস্হান করে নিয়েছেন। চরফ্যাসন থানায় নবনিযুক্ত ওসি মোঃ মনির হোসেন মিয়া রাত ৯টার দুকে “সময় সংবাদ.কম”কে বলেন চরফ্যাসন উপজেলা ছাত্রদলের দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় থানায় কোন মামলা হয়নি। নয়ন গ্রুপের এক ছাত্রদল নেতা জানান, তাদের পরিচিতি সভায় আলম গ্রুপের হামলার ঘটনায় তারা থানায় মামলা দায়ের করবে।