উন্নয়নের স্বপ্নদ্রষ্টা আবদুল্লাহ আল ইসলাম  জ্যাকব প্রজন্মের অনুপ্রেরণা

এআর সোহেব চৌধুরী (ভোলা) চরফ্যাশন থেকেঃ
বাংলাদেশের দ্বিপ জেলা ভোলার দক্ষিণাঞ্চলের কিংবদন্তী পুরুষ, প্রথিতযশা শিক্ষাবিদ,সমাজ সেবক ও রাজনীতিবিদ সাবেক ভোলা-৪ আসনের সংসদ সদস্য চরফ্যাশন ও মনপুরার গোলাপ ফুল অধ্যক্ষ মিয়া মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের জেষ্ট্য পুত্র আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব যুগে,যুগে নব প্রজন্মের জন্য এক উজ্জল অনুপ্রেরণার প্রতিক হয়ে থাকবেন মেধা, দূরদর্শি গুণাবলী, আঞ্চলিক উন্নয়ন ও জনগণের স্বপ্ন পুরোনের মধ্য দিয়ে।
পিতৃহারা আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব ছোটবেলা থেকেই পিতার কর্মময় জীবনের আদর্শকে নিজ বুকে ধারণ করে উন্নয়ন বঞ্চিত চরফ্যাশন ও মনপুরাবাসীর স্বপ্নকে লালন করে বিরোধি রাজনৈতিক রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে ধিরে,ধিরে নিজের মেধা ও শ্রম দিয়ে রাজনীতির মহাসড়কে দক্ষিণাঞ্চলের লাখ লাখ মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে ভোলা-৪ আসনের জনগণের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করেছেন। আর এ জনগণের মাঝেই পিতা মিয়া মোহাম্মদ নজরুল ইসলামের ভালোবাসা পেয়েছেন বার বার সংসদ সদস্য নির্বাচীত হয়ে।
নব প্রজন্ম এ অঞ্চলের গোলাপ ফুল খ্যাত পিতা মিয়া মোহাম্মদ নজরুল ইসলামকে হাড়ালেও তার পুত্র চরফ্যাশন ও মনপুরার মাটি ও মানুষের সন্তান গণ মানুষের বন্ধু জন নন্দিত জননেতা আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবকে পেয়েছেন আপন করে।
যিনি দক্ষিণ বাংলার দ্বিপ জেলা ভোলার প্রান্তিক অঞ্চল চরফ্যাশনের শতাব্দির শ্রেষ্ট সন্তান এ জনপদবাসীর প্রাণ পুরুষ, লালিত স্বপ্নের মহা নায়ক জাতীয় সংসদের তিন বারের সদস্য এবং পরিবেশ বন ও জলবায়ু মন্ত্রণাালয়ের (সাবেক) উপমন্ত্রী হয়ে এ অঞ্চলকে স্বপ্নের নগড়ে রুপান্তরিত করেছেন ধারাবাহিক উন্নয়নের মাধ্যমে।
এছাড়াও সামাজিক,সাংস্কৃতিক এবং ধর্মীয় উন্নয়নমূলক স্থাপনা নির্মানসহ বিভিন্ন সেবামূলক কার্যক্রম করে যাচ্ছেন মেধার শৈল্পিক বিকাশ ঘটিয়ে।
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ি কমিটির সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশন, জাতিসংঘ আয়োজিত রিও কনফারেন্স, পরিবেশের উন্নয়নে আন্তর্জাতিক জলবায়ু সম্মেলন এবং বানিজ্য সম্মেলনসহ নিজ দেশ ও জাতির উন্নয়নে রাষ্ট্রকে বিশ্ব দরবারে তুলে ধরতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ও সংসদীয় প্রতিনিধি দলের সাথে কাজ করেছেন দেশ বিদেশে।
দেশ ও জনগণের বন্ধু জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা বাংলাদেশ সরকারের প্রধাণমন্ত্রী জননেত্রী শেখহাসিনার উন্নয়নকে আরও সুদৃঢ় ও জনগণের মাঝে বিলিয়ে দেয়ার জন্য জ্যাকব দিনরাত পরিশ্রম করে তার নির্বাচনী এলাকায় শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে স্কুল,কলেজ, স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে একশত সয্যার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ নতুন আধুনিক মানের এ্যাম্বুলেন্স, ৪টি থানা, ও  আইন আদালতে বিচার কার্য সেবার জন্য যুগ্ন জেলা জজ আদালত ও অতিরিক্ত জেলা দায়রা জজ আদালত স্থাপন, ধর্মীয় অবকাঠামো উন্নয়নে মসজিদ,মাদরাসা,মন্দির নির্মান, যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে সড়ক ও মহাসড়ক উন্নয়ন এবং নৌ পথে অত্যাধুনীক লঞ্চ চলাচলের ব্যবস্থা,আধুনীকমানের বাস টার্মিনাল, ঘূর্ণিঝরে আশ্রয়ের জন্য স্কুল কাম সাইক্লোণ শেল্টার,নদী ভাঙ্গন ও বন্যা নিয়ন্ত্রণরোধে বেড়িবাঁধ,ঘরে,ঘরে ও দুর্গম অঞ্চলে বিদ্যুতায়ন,জলাবদ্ধতা নিরসনে ড্রেনেজ ব্যবস্থা, খাল অবৈধমুক্ত করে পরিবেশবান্ধব সড়ক নির্মানসহ বিনোদনের জন্য সু-উচ্চ জ্যাকব টাওয়ার (ওয়াটস্ টাওয়ার) শিশু পার্ক এবং পর্যটনমূলক নানান স্থাপনা গড়ে তুলেছেন।
যা আমাদের নব প্রজন্ম ও অনাগত ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য যুগে,যুগে অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে থাকবে। এবং চরফ্যাশন ও মনপুরাবাসীর সন্তান আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব মানুষের হৃদয় গভীরে একজন উন্নয়নের স্বপ্নদ্রষ্টা হয়ে থাকবেন।